Puzzle cum Dhadha

This page contains some puzzle or Dhadha in Bengali collected from different sources.

ধাঁধাঁ
১। বাজার থেকে এলো সাহেব কোট প্যান্ট পরে,
প্যান্ট খোলার পর চোখে পানি পড়ে।
উত্তর:পিয়াজ
২। যৌবনে যুবতী-বুড়োকালে লাল
নেংটা হয়ে বাজারে যায় জিভে আসে জল।
উত্তর:তেঁতুল
৩। একগাছে বহুফল গা কাঁটা কাঁটা
পাকলে ছাড়াও যদি হাতে লাগে আঠা
উত্তর: কাঁঠাল
৪। উপওে চুনকাম করা ভিতওে লাল ঝোল
না বলতে পারলে তোমার মাথায় গন্ডগোল
উত্তর:ডিম
৫। পেট কেটে দিলে পড়ে সব লোকে খায়,
না কাটলে সব প্রজার রাজাকে দিতে হয়
উত্তর: খাজনা
৬। বাকলে আনে দড়ি পাতায় তরকারী
খড়িতে লাকড়ীর যোগান এটা খুব দরকারী
উত্তর:পাট গাছ
৭। ঘেউ-ঘেউ করনা পাহাড়া দেয় বাড়ি
ভাত জল খায় না তবু দেহ শীতল ভারী
উত্তর: তালা
৮। বাবা নাহি জন্ম দিল জন্ম দিল পরে
ছেলে যখন জন্ম নিল মা ছিল না ঘরে
কেবা সেই, জন্ম দাতা কে সেই জন
এমন আশ্চর্য কথা শুনিছো কখন?
উত্তর: কুশ (হিন্দু ধর্মানুযায়ী রামের পুত্র)
৯। আশি টাকায় খাসি, নব্বই টাকার বই
এক পিঠ দেখা যায়, আর এক পিঠ কই?
উত্তর: আকাশ বা মাটি
১০। আখেরি দুসমনের আপশ
ভিতরে চামড়া উপরে গোস।
উত্তর:মুরগির গিলা
১১। তেল চুকচুক পাতা, ফলের উপর কাঁটা
পাকলে হয় মধুর মত, বিচি গোটা গোটা।
উত্তর: কাঁঠাল
১২। আগায় ঝুনঝুনি গোড়ায় মৌ
যে না কতি পারে সে মুচির বৌ
উত্তর:আখগাছ
১৩। ময়ুরের পাখ হাতির দাঁত
যে কইতে না পারবে সে গাধার জাত।
উত্তর:মূলা
১৪।হাত নাই, পা নাই পিঠ দিয়ে চলে
রাত দিন জলে।
উত্তর:নৌকা
১৫। একখানি পুকুর কই-এ গুর গুর করে
এমন বাপের পুত নাই নাইমা মাছ ধরে।
উত্তর:হুক্কা
১৬। আইছি কাজে, কইনা লাজে
আছে দুই লরা তার মাঝে।
উত্তর:গাভীর দুধ
১৭। গাছের নাম মুগুর মাছা
এক এক ডালে এক এক পাতা
গোড়ায় ধরে ফল,
এতো মজার ফলরে ভাই, এতো মজার ফল।
উত্তর: কচু গাছ
১৮। কোন পাখির ডিম নাই, বল দেখি ভাই?
উত্তর: বাদুর
১৯। চার অক্ষরে নাম তার দাওনা একটু বলে
প্রথম দুইটি বাদ দিলে বিয়ে করতে চলে।
উত্তর: মজিবর
২০। ঘসা দিলে মিটে আশা, নইলে পরে সব নিরাশা
উত্তর: দিয়াশলাই
২১। দেখিতে আশ্চর্য বড়, মা ছোট তার ছেলে বড়।
উত্তর:খৈ
২২। মামা ডাকে মামা বলে, মাও বলে তাই
ছেলে বলে মামা, বাবাও বলে তাই
উত্তর: চাঁদ মামা
২৩। খোদার এমনি কাম, এক ঘরে এক খাম
উত্তর: ছাতা
২৪। চার কলসি দুধে ভরা ঢাকনী ছাড়া উপুড় করা
উত্তর: গাভী বান
২৫। ছোট ছোট পোলাপান ছোট ছোট ছাও
পাও দিয়ে চেপ্টা করে, তা তোমরা খাও
উত্তর: চিড়া
২৬। বুড়োদের ন’বার ছ’বার
ছোকরাদের একবার
উত্তর: সুই সুতো পড়ানো
২৭। ফুটোর মধ্যে দিয়ে ফাটা, নড়ে চড়ে পড়ে আঠা
কালিদাস পন্ডিতে কয়
যা বুঝেছ তা নয়।
উত্তর: দোয়াত, কলম, কালী
২৮। সাইজ্যা ওড়াইয়া শাড়ি ভিন্ন পুরুষের কাছে
হাতে ধড়াইয়া ঠেলাঠেলি, ভিতরে যায় আর আসে।
উত্তর:চুড়ি
২৯। দুই ঠেং ছড়াইয়া, মাঝে দিল ভরিয়া
আপন কাজ করিয়া পরে দেয় ছাড়িয়া
কালি দাস পন্ডিতে কয়
যাহা বুঝেছ তাহা নয়।
উত্তর:যাঁতি দ্বারা সুপারি কাটা
৩০। যতটা টানে ততটা কমে
বলতে পার তার মানে?
উত্তর:বিড়ি-সিগারেট
৩১। চারকোনা পুকুরখানি, মাসের মাস পাল্টায় পানি
ঢুকোয় বার করে, ঝর ঝর লাল পড়ে।
উত্তর:দোয়াত, লালকালি, কলম।
৩২। আট আঙ্গুলে হয় কাপড়ের ভেতর
রয় বালধুপসি গাযম সর্বলোকে খায়।
উত্তর:ভুট্টা
৩৩। ঘুরি ফিরি যুদ্ধ করি মরিবার তওে,
ছুলে সে মওে, না ছুলে সে মরে না।
ইস্সিরে পারলেন না।
উত্তর: হা-ডু-ডু খেলা
৩৪। ঘরের ভেতর ঘর, তার ভেতর কণ্যে আর র্ব
ইস্সিরে পারলেন না।
উত্তর:মশারী
৩৫। এমন এক জিনিষ সর্বলোকে খায়
ছোট ছোট ছেলে মেয়ে খেলে পড়ে মায়ের কাছে যায়।
বৃদ্ধ লোকে খেলে পরে মাথায় হাত দেয়
যুবক-যুবতীরা খেলে পরে এদিক-ওদিক তাকায়।
ইস্সিরে পারলেন না।
উত্তর:আছাড় খাওয়া
৩৬। মেয়ে লোকের হাতে নাচে
সাতশত মুখ তার আছে।
উত্তর: চালুনি
৩৭। মায়ের গর্ভে থাকিয়া সে মায়ের মাংস খায়
মাটিতে পড়িয়া সে আট পায়ে দাঁড়ায়।
উত্তর: মাকড়শা।
৩৮। যখন তোমার জন্ম হয় তখন কিন্তু আমি নেই
যখন তোমার শৈশব কাল তখন এসে দেখা নেই।
তোমার যখন বৃদ্ধ কাল আমি তখন চলে যাই।
উত্তর: দাঁত
৩৯। হাত আছে পা নাই মাথা তার কাটা
আস্ত মানুষ গিলে খায় বুক তার ফাটা
উত্তর:শার্ট
৪০। বাজার বউ রাণী এক বাটায় দুই রকম পানি
উত্তর:জুতা
৪১। তিন অক্ষরে নাম তার সর্বলোকে খায়
প্রথম অক্ষর বাদ দিলে মেয়ের লোকের হাতে যায়
উত্তর: খিচুড়ি
৪২। বলেন তো দেখি রাতে আসে  রাতে যায়
চোরও না, বাঘও না, মানুষও খায়,গরু খায়
উত্তর: মশা
৪৩। দিনেক করি শতেক বিয়ে
কাবিন টাবিন নাহি হয়
ছেলে মেয়ের মালিক আমি কোন কালে নয়
উত্তর:মোরগ
৪৪। যত কাটিবে তত বাড়িবে
ওটা কি তা বলতে পারিবে?
উত্তর:পুকুর খনন করা
৪৫। পাঁচ ব্যাটায় ধওে
বত্রিশ বেটার করে, এক ব্যাটায় ধাক্কায় নেয় ঘরে।
উত্তর:ভাত খাওয়া
৪৬। এটার ভিতর ওটা দিয়া দু’জনেতে রইল শুইয়া
বাইরের লোক যত ঠেলে, মুখটি মোটে নাহি খোল্
েউত্তর:দরজার খিল
৪৭। চিত করে ফেলে উপুর করে
এমন করা করে গহনা শুদ্ধ নড়ে।
উত্তর:গয়না পড়ে সিল পাটায় মসলা পেসা
৪৮। মানুষ নয় প্রাণীও নয় পাছে পাছে ঘুরে
লাথি দিলে সেও লাথি দেয় গায়ের জোরে।
উত্তর:ছায়া
৪৯। এক শিং বার পা কোন প্রাণী আছে
জলেতে বাস করে ডিম পাড়ে গাছে।
উত্তর:চিংড়ি মাছ
৫০। ঘরের পিছনে গাই
এক বিয়ানে নাই।
উত্তর: গলা গাছ
৫১। জন্মে সাদা কর্মে কালা গলায় লোহার হার
লাফ দিয়ে আহার কওে লম্বা লেজ তার।
উত্তর:জাল
৫২। জলের মাঝে জন্ম হলো দুই অক্ষরের প্রাণী
শেষের অক্ষর ছেড়ে দিলে হয় মহারাণী।
উত্তর: মাছ
৫৩। দৌড়িয়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরে করছে টানাটানি
মধ্যখানে খিল মেরেছে ভিতওে পরছে পানি।
উত্তর:খেজুর গাছ থেকে পানি পড়া।
৫৪। জামাই এল কাজে
বলতে পারিনি লাজে আমার
একটা কাজ আছে দুই ঠ্যাংয়ের মাঝে।
উত্তর:গাই দোহানো
৫৫। পুরুষ খাড়া করে
মেয়েরা হাত বুলটি ধরে।
উত্তর:মাটি দেওয়াল লেপা।
৫৬। যুবতী এক নারী ঘুমিয়ে বসে আছে দিবার সময় কান্নাকাটি
ভেতরে গেলে হাসে।
উত্তর:শাখা পড়ানো।
৫৭। চারটি ঘর উপুর করা তার ভিতরে মধু ভরা।
উত্তর:গরুর বাঁট
৫৮। এক থালা সুপারী গুনতে পারে কোন ব্যাপারী
উত্তর: আকাশে তারা
৫৯। লাল মিয়া হাটে যায় প্রত্যেকের হাতে থাপ্পর খায়।
উত্তর:হাঁড়ি
৬০। কালি দাসের ছোট বেলার কথা
৯ (নয়) হাজার তেতুল গাছে কয় হাজার পাতা।
উত্তর:১৮ (আঠার) হাজার পাতা
৬১। উপর থেকে আসল বুড়ি কাঁথা কাপড় নিয়া
মধ্য সভায় আইসা বুড়ি নাচে ন্যাংটা ব্যাংটা হইয়া।
উত্তর: নারিকেল
৬২। শুইতে গিলে দিতে হয়
না দিলে ক্ষতি হয়।
উত্তর:দরজার খিল।
৬৩। কালিদাসের হেয়ালির ছন্দ
দরজা আছে হাজারটা তবু মানুষ বন্ধ।
উত্তর:মশারী
৬৪। বাঘের মত লাফ দেয়, বিড়াল হয়ে বসে
পানির মধ্যে ছেড়ে দিলে সোলা হয়ে ভাসে।
উত্তর:ব্যাঙ
৬৫। সোখা নাই উড়ে চলে মুখ নাই ডাকে
বুক চিড়ে আলো বেরয়, চিন নাকি তারে।
উত্তর:মেঘ
৬৬। কালিদাস গোপালকে কানে কানে কয় কারলেজ
কেটে দিলে ব্যঞ্জন বর্ণ হয়।
উত্তর:কলেজ
৬৭। মুখ থেকে বসি বাওে রক্ত কালো কালো
শিক্ষিত জনের কাছে সে বড় ভাল।
উত্তর:কলম
৬৮। দুই ঠ্যাং ছড়াইয়া মাঝে দিলাম ভরিয়া
আপন কাজ ছাড়িয়া দিলাম পরে ছাড়িয়া।
এইটা কি এইটা মনে হয় বাজে কথা
আরে যা ভাবছো তা নয়।
উত্তর:যাঁতা
৬৯। আমি তুমি একজন দেখিতে স্বরুপ
আমি যত কথা কই তুমি কেন থাক চুপ।
উত্তর:ছবি বা ফটোগ্রাফ
৭০। কোমর ধইরা শোয়াইয়া তারের গায়ের সব
জোওে দুই হাত দিয়া যে সব মিহিমিহি
করে কাজ শেষে খুশি মনে গোসল করাইয়া ছাড়ে।
উত্তর: শিল-নোড়া
৭১। তিনজন ধরে,এক জনে করে, ফেনা তুলে ছাড়ে।
উত্তর:উনুন বা চুলা
৭২। মা বলে চিৎকার করি পায়ে ঢুকলে কাটা
উল্টে দিলে সবাই খুশি
নাম কি তার বল কাকা।
উত্তর: টাকা।
৭৩। বলতে পারিস অন্ত
দাঁড়িয়ে ঘুমায় কোন জন্তু
উত্তর: ঘোঁড়া
৭৪। কোদাল ছাড়া কাটল পুকুর পিতলে বাধা পড়ে
নীলকন্ঠে পানি খায় দুর করে আঁধার।
উত্তর: প্রদীপ বা কুপি
৭৫। মনের মানুষ বলে তোমায় সবকিছু দিয়ে থাকি
কোন জিনিষটা দেইনা তোমায় তোমারে দেই ফাকি।
উত্তর: ঘোমটা
৭৬। থুতু দিয়া খাড়া করে পাছায় গোড়ায় চেপে ধরে
যুবকে দিলে এক বারেয় হয় বৃদ্ধে দিলে বারবার লয়
উত্তর:সুঁচে সুতা ভরা
৭৭। হাসতে হাসতে গেলাম পর পুরুষের কাছে
দেওয়ার সময় কান্নাকাটি হইয়া গেলে হাসাহাসি
ও জনী জনে মূর্খেরা কয়।
উত্তর:শাঁখা পরানো।
৭৮। দুই পাশে ঘন কালো
মাঝখানে লাল স্বামী আছে যতদিন
দিতে হবে ততদিন ।
উত্তর:সিথির সিঁদুর
৭৯। মেয়েদের লাথি খায় কোন লজ্জা নাই
তবু মাথা উচু কওে এ কোন জিনিষ ভাই
উত্তর:ঢেঁকি
৮০। বিধাব না হইয়াও পরে শাড়ী
ইায়না-খায়না তবু সে সুন্দরী।
উত্তর:রসুন
৮১। কালিদাসের ফাঁকি আড়াইশ থেকে
পাঁচ পঞ্চাশ গেলে কত থাকে বাকি।
উত্তর:শূন্য।
৮২। ঘর আছে দরজা ইেন
মানুষ আছে কথা নাই
উত্তর:কবর
৮৩। মাটির হাড়ি কাঠের গাই
বছর বছর দোয়াইয়া খাই।
উত্তর:খেজুর গাছ
৮৪। কালে কৃষœ জলে ভাসে
হাড় নাই তার মাংস আছে।
উত্তর:পানি জোঁক
৮৫। এক হাত মিয়া সোয়াহাত
দাড়ি চলছে মিয়া শ্বশুর বাড়ি
উত্তর:কচুরি পানা
৮৬। তৃণ হতে জন্ম মোর জ্ঞানী করেন আদর
দেশ বিদেশে ঘুওে দৌড়াই আমার কত কদর।
উত্তর: কাগজ
৮৭। মাথার মুকুট গোল পা
পেটের মধ্যে হাত পা।
উত্তর:শামুক
৮৮। তিন অক্ষরে  নাম তার গৃহ মধ্যে রয়
প্রথম অক্ষর বাদ দিণে সু-স্বাদু খাবার হয়।
শেষের অক্ষর বাদ দিলে বিছা তারে কয়।
উত্তর:বিছানা
৮৯। বছর আসে, মাসে খায়
দিনে খায়না, রাতে খায়।
উত্তর:রোজা
৯০। আজব একটা জিনিষ দেখে এলাম হাটে
আট পা তার দুই হাটু
লেজ আছে তার পিঠে।
উত্তর:দাড়ি পাল্লা
৯১। যৌবনে খুবই ঝাল রস নাহি থাকে
বৃদ্ধ কালে রসে ভরা লোকের মুখে থাকে
উত্তর:পান
৯২। বিনি সুতোয় মোহন মালা কেই দেখে না তারে
ইহার এমন নিষ্ঠুর জ্বালা শেষ করিয়া ছাড়ে।
উত্তর:প্রেম
৯৩। গলা জড়িয়ে আসে রসিক ও যুবতী
মাজার উপওে বসায়ে সমতনে বস্তি।
উত্তর:কলসি
৯৪। দিওনা, তার আগে যদি পাও
সবটা এবার তুমি শোধ কওে দাও।
উত্তর:পাওনা
৯৫। দিনের বেলায় ঘুমিয়ে থাকে রাতের বেলায়
জাগে ঘর নেই বাড়ি নেই পরের কাজে লাগে।
উত্তর:চাঁদ
৯৬। এক বেটির নাম পার্বতী
নাচতে নাচতে গর্ভবতী।
উত্তর: নাটাই সুতা
৯৭। দেহ আছে প্রাণ নেই সে এক রাজা
সৈন্য সব আছে সেই তার প্রজা।
উত্তর:দাবার ঘুঁটি
৯৮। হাড়গোড় নাই তার মাংস শুধু আছে
রং টা তার কালো, জলা জাগায় আছে।
উত্তর: জোঁক
৯৯। কোন ব্যাংকে টাকা থাকে না?
ধার কখনো পাওয়া যায় না।
উত্তর:ব্ল্যাড ব্যাংক।
১০০। ছিড়ছে দাড়ি, টানছে নাড়ি
ফুলে উঠছে ভুঁড়ি
পাগুলো পেটের ভিতর গলায় দিচ্ছে দড়ি।
উত্তর:নাটাইয়ের সুতা
১০১। কোন দেশে এক টাকাং তিনটি হরিণ মেলে
না বলতে পারলে তোমায় দেব ঘোল ঢেলে
উত্তর:বাংলাদেশের এক টাকার নোট
১০২। সবুজ বুড়ি হাঁটে যায়
নিত্য হাঁটে চিমটি খায়
উত্তর:লাউ
১০৩। চিঠি নয় তবু ভাই চিঠির মত ঘুরে একখানা
হারাইয়া গেলে বুক ফেটে যায়।
উত্তর:টাকা
১০৪। মুখখানি কালো করে ফিরেছিল ঘরে
ঘর তুলে তবু তাওে টেনে আনি ধরে।
উত্তর:ম্যাচ বা দিয়াশলাই
১০৫। কোন দেশে মাটি নাই?
উত্তর:সন্দেশ
১০৬। এক গাছে এক বুড়ি চোখ তার বারো কুঁড়ি
উত্তর:আনারস
১০৭। কালো ছাগলের দড়ি
রাত হলেই  খোঁজ করি।
উত্তর:কেরোসিনের বোতল
১০৮। স্বামী দিল হাতে রাখলাম পাতে
একটু পরে দেখি, কিছু নেই তাতে।
উত্তর:বরফ
১০৯।মুখেতে খেলে চুমু হাসে খল খল
পেটের মধ্যে শুধু জল কওে ছল ছল।
উত্তর:হুক্কা
১১০। ছোট একটি মামা গায়ে হাজার জামা।
উত্তর:পেয়াজ
১১১। বন থেকে এলো টিয়ে
সোনার টোপর মাথায় দিয়ে।
উত্তর:আনারস
১১২। আমার বাবা-বাবার বাবা কি সম্পর্ক ভাই
দাদারো দাদা, মামারো বাবা লজ্জাই মরে যাই।
উত্তর:জগৎপিতা
১১৩। দিলে খায়না, না দিলে খায়, বলো দেখি ওটা কি হয়?
উত্তর:গরুর মুখের ঠুসি
১১৪। বাগান থেকে আসল বুড়ি
এসে থালায় দিল প¯্রাব করি।
উত্তর:লেবু
১১৫। এক হাত দড়ি, গুছাইতে না পারি।
উত্তর: রাস্তা
১১৬। তিন অক্ষরে  নাম তার সবার কাছে প্রিয় হয়
প্রথম অক্ষর বাদ দিলে আমেরিকার শহর হয়।
উত্তর:জীবন
১১৭। তিন অক্ষওে নাম তার সর্ব লোকে খায়
মাঝের অক্ষর বাদ দিলে গাড়ি হয়ে যায়।
উত্তর:বাতাষ
১১৮। আসার সময় কেঁদে ছিলাম সবাই তখন হাসে
যাবার সময় হাসলাম আমি সবাই তখন কাঁদে।
উত্তর:জন্ম-মৃত্যু
১১৯। গরমে রাখলে গলে যায় ঠান্ডায় হয় শক্ত
রাত হলে সব লোকেই এ জিনিষের ভক্ত।
উত্তর:মোম
১২০। ফুটার মধ্যে খুটা দিয়া নিশ্চিন্তে ঘুমায় না বলতে
পারলে সে পরের দাঁড়ির কামায়।
উত্তর:দরজার খিল
১২১। এক জন শত্রু সেনা যদি ধরা পড়ে দুজনে বাইরে আনে
একজনে মারে।
উত্তর:উকুন
১২২। তিন অক্ষওে নাম, থাকে জাহাজে মধ্যাক্ষর কেটে দিলে
জন্ত হয়ে থাকে, শেষ অক্ষর কেটে দিলে আত্মীয় বুঝায়
হাবারাম শুধুই ভাবে-মানে পাওয়া যায়।
উত্তর:খালাসী
১২৩। পাও দিয়া লাথি মাওে তবু ভাগে না
খেতে দিয়ে কেড়ে নিলেও রাগ করে না।
উত্তর:ঢেকিতে ধান ভাংগা
১২৪। এক ব্যাটার তিন মাতা পেটে আগুনের গোলা
যদি না বলতে পারো খাবে কানমলা।
উত্তর:চুলা বা উনান
১২৫। অন্ধ বাগান বন্ধ্যা গাছ ফুল ফোটে বারো মাস।
উত্তর:তারা
১২৬। হাত পা কিছুই নেই ঘোরার সে নাগর
বুক দিয়ে পার হয় জঙ্গল বন সাগর।
উত্তর:সাপ
১২৭। লম্বা সাদা দেহ তার মাথায় টিকি রয়
টিকিতে আগুন দিলে দেহ তার ক্ষয়।
উত্তর:মোমবাতি
১২৮। তিনি অক্ষরে নাম তার সবার ঘরে রয়
মাঝের অক্ষর বাদ দিলে বাদ্য যন্ত্র হয়।
উত্তর:বিছানা
১২৯। গায়ে দিলে নগন্য পায়ে দিলে ধন্য।
উত্তর: জুতা
১৩০। পায়ের নিচে নগন্য মাথায় দিলে ধন্য।
উত্তর:পাগড়ী
১৩১। চলতে চলতে তার মাথা হলো ভার
মাথা কাটিয়া দিলে চলবে আবার।
উত্তর:পেনসিল
১৩২। কাঁচায় তুল তুল পোড়াইলে সিঁদুর
যদি না বলতে পারো তবে তুমি ইঁদুর।
উত্তর:মাটির হাড়ি
১৩৩। অল্প দিল ভাল লাগেনা বেশি দিলে বিষ
শ্বাশুরী বলে বউকে আন্দান করে দিস
উত্তর:লবণ
১৩৪।ফুটোর মধ্যে ঢুকিয়ে নড়াচড়া করে
কখনো বোজে, কখনো খুলে থাকে সব ঘরে।
উত্তর:তালাচাবি
১৩৫। বিয়ের সময় দাদ দেয় একবার
সারা জীবন বৌদি দেয় বারবার।
উত্তর:সিদুর
১৩৬। যখন দৃষ্টিপথে পড়েছে আমার
তখন ধরে আমি মেরেছি আছাড়।
উত্তর:সর্দি
১৩৭। ঢোকে না ঢোকাও কেন পরের মেয়ে কাঁদাও
উত্তর: হাতের চুড়ি
১৩৮। বিনা সুতায় মোহত মালা, কেউ দেখে না তারে
ইহার নাম নিঠুর ধারা সার করে ছাড়ে।
উত্তর:প্রেম
১৩৯। সকালে জন্মলাভ বিকালে মরণ
তার অভাবে সর্বজীবের বিফল জীবন।
উত্তর:সূর্য
১৪০। পাখা নাই উড়ে চলে, সুখ নাই ডাকে
বুক চিরে আলো ছুটে, চিনে সবাই তাকে।
উত্তর:মেঘ
১৪১। জন্ম দিয়া বাপ পলাইল, মা হইল বনবাসী
যার ছেলে সে নিয়ে গেল কাইন্দা মরল পড়শী।
উত্তর:কোকিলের ছানা
১৪২। আছে ফল গাছে নাই,খায় ফল ছোবা নাই।
উত্তর:বরফ
১৪৩। এক হাত গাছটা, ফল ধরে পাঁচটা।
উত্তর: হাত পাঞ্জা

 

Fund for Bangladesh, First funding site in Bangladesh with hundreds of new funding opportunities of different world renowned donors in 2017
● 
Website: https://fundforbangladesh.wordpress.com/
● 
All funding opportunities: https://fundforbangladesh.wordpress.com/site-map/

● On Facebook: https://web.facebook.com/FundForBangladesh/

16864863_1430892390307892_168430222516352964_n

Facebook page-From the Heart of Bangladesh

Advertisements
  1. আমার একটা কাঠের গাই রাতে ছাকি দিনে খাই এটার ans jana takhle din

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: